নাগরিকত্ব আইন নিয়ে ফের উত্তপ্ত দিল্লির রাজপথ, পুলিশের লাঠিচার্জ

|

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে ফের রণক্ষেত্রে পরিণত হয়ে উঠেছে ভারতের রাজধানী দিল্লির রাজপথ। আজ দুপুরে বিক্ষোভকারীরা ফের রাস্তায় নামলে পুলিশের সাথে সংঘর্ষে রণক্ষেত্রে পরিণত হয় পুরো এলাকা।

আজ দুপুরে দিল্লির সিলামপুর এলাকায় নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতা ও জামিয়া মিল্লিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশ করে শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশের হামলার প্রতিবাদে প্রায় দু হাজারের মতো বিক্ষোভকারী জড়ো হলে পুলিশ বিক্ষোভকারীদের উদ্দেশ্যে কাদানে গ্যাস ও লাঠিচার্জ শুরু করে। এরপর বিক্ষোভকারীরা প্রতিবাদে কয়েকটি বাসে ভাঙচুর ও আগ্নিসংযোগ করে। মুহূর্তে পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে।

এরপরপরই জোহরি এনক্লেভ, শিববিহার-সহ মোট সাতটি মেট্রো স্টেশন বন্ধ করে দেয় দিল্লি মেট্রোরেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। বন্ধ করে দেওয়া হয় সিলামপুর-জাফরবাদের রাস্তাও। জাফরবাদেও জমায়েত হয় বহু সাধারণ মানুষ।

গত শুক্রবার থেকে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে সরব জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়। তবে রবিবার বিক্ষোভকারীরা পথে নামলে তাঁদের সঙ্গে যোগ দেয় বহু সাধারণ মানুষ। পুলিশ-জনতার খণ্ডযুদ্ধে ধ্বংসাত্মক চেহারা নেয় নিউদিল্লির নিউ ফ্রেন্ডস কলোনি। ওই বিকেলে একের পর এক বাস ভাঙচুর করে আগুন ধরিয়ে দেন বিক্ষোভকারীরা।

গত রোববার নাগরিকত্ব আইন নিয়ে দিল্লির জামিয়া মিল্লিয়া ইসলামিয়ার শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করলে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পানে ঢুকে শিক্ষার্থীদের উপর বেধড়ক লাঠিচার্জ করে দিল্লি পুলিশ। আটক করা হয় অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থীকেও। একইসাথে পুলিশ আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয়, পটনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসেও শিক্ষার্থীদের উপর লাঠিচার্জ করে। সেই রাত থেকেই পথে নামে দেশটির অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply