যে কারণে কেসরিক উইলিয়ামসের নকল করলেন কোহলি

|

টেস্ট ও ওয়ানডেতে অনন্য সব রেকর্ড থাকলেও টি-টোয়েন্টিতে সেভাবে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি বিরাট কোহলি।

তবে শুক্রবার ক্রিকেটের এই সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে নিজেকে ছাপিয়ে গেলেন কোহলি। ক্যারিয়ারসেরা ৯৪ রান করলেন ভারতীয় দলের অধিনায়ক।

কিন্তু ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষের সেই ম্যাচে ৫০ বলে অপরাজিত ৯৪ আগ্রাসী ইনিংস খেলার পরও আলোচনা চলছে অন্যকিছু নিয়ে।

ওই ম্যাচের ১৬তম ওভারে ছক্কা হাঁকিয়ে কেসরিক উইলিয়ামসকে নকল করেছিলেন কোহলি। আর তা নিয়েই আলোচনায় মুখর হয়ে ওঠে ক্রিকেটাঙ্গন।

এ ঘটনার পর পর অনেকেই বলেছিলেন, বদলা নিয়েছেন কোহলি। তবে খেলা শেষে মাঠেই কোহলি জানালেন, না কোনো বদলা নয় এটি। শুক্রবার হায়দরাবাদে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে লোকেশ রাহুলের সঙ্গে জুটি বাঁধেন কোহলি। ১০০ রানের জুটি গড়েন তারা। রাহুল ৬২ রানে ফিরে গেলেও ম্যাচ শেষ করেই মাঠ ছাড়েন কোহলি। ১৮.৪ ওভারেই ক্যারিবীয়দের দেয়া ২০৮ রানের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় ভারত।

ম্যাচের ১৬তম ওভারে ইন্ডিজ বোলার কেসরিককে ছক্কা হাঁকিয়ে তার সেলিব্রেশনকেই নকল করেন বিরাট।

কেসরিককে নকলের বিষয়ে ক্রিকেটবোদ্ধারা বলছিলেন, সিপিএলে চাদউইক ওয়াল্টনের আউটের পর যে সেলিব্রেশন করেছিলেন কেসরিক উইলিয়ামস, তারই নকল করেছেন কোহলি।

তবে কোহলি জানালেন ভিন্নকথা।

বিরাট কোহলি বলেন, ‘না, সিপিএলে কেসরিকের সেলিব্রেশনকে নকল করিনি আমি। কেসরিক জামাইকায় একটি ম্যাচে আমাকে আউট করে এভাবেই উদযাপন করেছিল। সেটিই করেছি।’

এতে যে কেসরিককে অসম্মান করা হয়নি সে ব্যাখ্যাও দিলেন কোহলি।

তিনি বলেন, ‘আমি আমার নোটবুকে কিছু স্মৃতি রেখে দিই, সেসব স্মৃতিই রোমন্থন করি। এটিই সবাই দেখতে চায়। ভালো প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট এবং শেষে সবাই সবার সঙ্গে হাত মেলাবে। এটিই ক্রিকেট। নিজের সেরাটা দিয়ে খেলে যেতে হবে আর তার প্রতিপক্ষের প্রতি সম্মান রেখেই।’

টি-টোয়েন্টিতে নিজের সেরা ইনিংসটি খেলার বিষয়ে কোহলি বলেন, ‘আমি টি-টোয়েন্টির বেলায় বিশেষ কোনো পরিবর্তন আনি না। সব ফরম্যাটের ম্যাচেই রান করতে চাই। যেকোনো এক ধরনের ক্রিকেটে আটকে থাকার লক্ষ্য আমার নেই। ’

শুক্রবারের এই জয় দিয়ে সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেল ভারত। দ্বিতীয় ম্যাচ আজ রোববার থিরুভানানথাপুরামে।









Leave a reply