দাঁড়ানোর জায়গা নেই, তাই প্লাস্টিকের বোতল দিয়ে যাত্রী ছাউনি বানাল শিক্ষার্থীরা

|

পরিত্যক্ত প্লাস্টিকের বোতল দিয়ে যাত্রী ছাউনি তৈরি করে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে কলেজ পড়ুয়া একদল শিক্ষার্থী।

ভারতের গোয়াতে ক্যানাকোনার সত্যবতী সোয়েরু উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের তরুণ এ শিক্ষার্থী দল নিজেদের প্রয়োজনেই তৈরি করে ফেলেছে ‘রিসাইকেলড বাস শেল্টার’। শুক্রবার এক প্রতিবেদনে এ খবর প্রকাশ করেছে টাইমস অব ইন্ডয়া।

ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা রাস্তায় পড়ে থাকা প্লাস্টিকের বোতল সংগ্রহ করে নিজদের উদ্যোগে বাসের আশ্রয়স্থল তৈরি করেছেন। কয়েক বছর ধরে সরকারের দিকে তাকিয়ে থেকে অবশেষে নিজেরাই এ উদ্যোগ নেন ছাত্ররা।

ছোট্ট একটা যাত্রী ছাউনির অভাবে বছরের পর বছর রোদ-ঝড়-বৃষ্টির সঙ্গে সংগ্রাম করছিলেন স্থানীয়রা। সরকার নিশ্চুপ, কারও ভ্রুক্ষেপ নেই- এমন অবস্থার মধ্যেই হঠাৎ ‘রিসাইকেলড বাস স্টপ’ তৈরির পরিকল্পনা করে ফেলেন কলেজে বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্ররা।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এ বিদ্যালয়ের বিজ্ঞানের একদল শিক্ষার্থী এ পরিকল্পনা মাথায় নেয়। তারা পড়ে থাকা কোমল পানীয় এবং পানির বোতল দিয়ে এ ছাউনি তৈরি করেছেন। অনিশ ফালদেশাই নামের এক শিক্ষার্থী জানান, আমি মনে করি এটা আমাদের জন্য একটা সুযোগ।

কর্তৃপক্ষকে আমরা যাত্রী ছাউনি তৈরির কথা বলেও বানাতে পারিনি। অন্য শিক্ষার্থীরা বলেন, আমরা চাই প্লাস্টিকের ক্ষতিকারক দিকগুলো মানুষ জানুক এবং প্লাস্টিক ব্যবহারেও যেন সচেতনতা কাজ করে।

তবে এ ধরনের কাজ ভারতে এটাই প্রথম নয়। চলতি বছরের ১০ মে ভারতের হায়দরাবাদে দেখা মিলেছে বোতলের তৈরি যাত্রী ছাউনি। এ ছবি পোস্ট করার পর দ্রুতই তা সোশ্যাল মিডিয়ায় তা ভাইরালও হয়ে যায়। প্রায় এক হাজারটি প্লাস্টিকের বোতল দিয়ে নির্মাণ করা হয়েছিল ওই ছাউনিটি।

ব্যাম্বো হাউস ইন্ডিয়ার প্রতিষ্ঠাতা প্রশান্তের উদ্যোগে তৈরি করা যাত্রী ছাউনিটি ৮ ফুট উঁচু। আর এটি নির্মাণে সময় লগেছে দুই থেকে তিন দিন। আর কাজ করেছেন ২০ জন লোক। খরচের দিক থেকেও খুব একটা ব্যয়বহুল নয় এ যাত্রী ছাউনিটি। মাত্র ১৫ হাজার রুপিতেই তৈরি হয়েছে এটি।

যেখানে ইট-সিমেন্ট দিয়ে একটি যাত্রী ছাউনি তৈরিতে খরচ পড়ে দুই থেকে আড়াই লাখ রুপি। কিন্তু বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে যাত্রী ছাউনি তৈরি করার পরিকল্পনাটি একেবারেই নতুন।









Leave a reply