ভাতিজাকে অপহরণ করে ১৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি!

|

শরীয়তপুর প্রতিনিধি
শরীয়তপুরের জাজিরায় ১৫ লাখ টাকার জন্য আপন চাচা ৮ বছর বয়সের ভাতিজাকে অপহরণ করে। অপহৃত তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র মাহিম হোসেনকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত শনিবার দুপুরে শিশুটিকে অপহরণ করা হয়েছিল। সোমবার ভোর রাতে ঢাকার কামরাঙ্গিরচর এলাকা থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। অপহরণের অভিযোগে ওই শিশুর চাচা শিপন মৃধাসহ তিন ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

জাজিরা থানা ও স্থানীয় সূত্র জানায়,জাজিরার সেনেরচর দক্ষিণকান্দি গ্রামের রিপন মৃধার ছেলে মাহিম হোসেন ২৪নং সেনেরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র।
প্রতিদিনকার মতো শনিবার ফাহিম হোসেন বিদ্যালয়ে যায়। ওই দিন টিফিনের সময় সে বাহিরে বের হলে তাকে তুলে নিয়ে যায় তার চাচা শিপন মৃধা। এরপর ঢাকার কামরাঙ্গীরচরের একটি বাসায় আটকে রাখে। পরিবারের সদস্যরা তাকে খুঁজে না পেয়ে জাজিরা থানায় অভিযোগ করেন। শনিবার রাতে অপহরনকারীরা শিশুর মায়ের মুঠোফোনে ১৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। ওই ফোনের সূত্র ধরে ফোন কল ট্রাকিং করে পুলিশ সোমবার ভোরে কামরাঙ্গীরচর এলাকার একটি বাসা থেকে মাহিমকে উদ্ধার করে। অপহরণে জড়িত থাকার অভিযোগে মাহিমের চাচা শিপন মৃধা,তার সহযোগী রুবেল মোল্যা ও সোলায়মান ওরফে আল আমীনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

শিশু মাহিমের বাবা রিপন মৃধা মালয়শিয়া প্রবাসী। সোমবার ওই শিশুর মা শুভতারা বেগম বাদি হয়ে শিপন মৃধাকে আসামি করে জাজিরা থানায় অপহরণ মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ আটক ওই তিন ব্যক্তিকে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠিয়েছে।

জাজিরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বেলায়েত হোসেন বলেন, অপহৃত শিশুটির মা শুভতারা বেগম থানায় অপহরণের অভিযোগ করে। অভিযোগের পর শিশুটিকে উদ্ধারের জন্য পুলিশ অভিযান চালায়। ফোনের সূত্র ধরে কল ট্রাকিং করে শিশুকে উদ্ধার করে জাজিরা থানা পুলিশ।









Leave a reply