শ্রমিকলীগ নেতার বিরুদ্ধে নদীর তীর কেটে মাটি বিক্রির অভিযোগ

|

জাকারিয়া হৃদয়, পটুয়াখালী
পটুয়াখালীর মহিপুর থানা শ্রমিকলীগের সহ-সভাপতি জামাল হোসেনের বিরুদ্ধে ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে খাপড়াভাঙ্গা নদীর তীর অবৈধভাবে খনন করে মাটি বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ আছে, নদীর তীর কেটে ইটভাটায় নিয়ে যাওয়া হয়। এতে হুমকীতে পরেছে নদীর তীর সংলগ্ন বেড়িবাধসহ বসবাসরত জনসাধারণ।

স্থানীয়রা জানায়, কলাপাড়া উপজেলার খাপড়াভাঙ্গা নদীর মাইটভাঙ্গা সংলগ্ন এলাকায় নদীর তীর খনন করে মাটি কেটে তা পাঁচ কিলোমিটার দূরে কুয়াকাটা বেড়িবাধের উপর ফেলছে মহিপুর থানা শ্রমিকরীগের সহ-সভাপতি জামাল হোসেন। এর কিছুদূরে একই নদীর আরেক অংশের তীর খনন করে ইটভাটায় মাটি ভরাট করছেন আরেক প্রভাবশালী আওয়ামী লীগ নেতা ইউসুফ ফরাজি। গত কয়েকদিন ধরে এভাবে মাটি কাটায় স্থানীয়রা বাধা দিতেও সাহস পাননি। এতে হুমকীতে পরেছে ওই নদীর পাড়ের বেড়িবাধটি।

বিষয়টি জানার পর তাৎক্ষনিকভাবে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দিয়েছেন লতাচাপলি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনসার উদ্দিন মোল্লা।

বিক্রির অভিযোগ অস্বীকার করলেও নদীর তীর থেকে মাটি কেটে কুয়াকাটা বেড়িবাধে নেয়ার বিষয়টি স্বীকার করেন অভিযুক্ত মহিপুর শ্রমিকলীগের সহ-সভাপতি জামাল হোসেন।

অপরদিকে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার বাস্তবে রুপ দিতে দ্রুত সময়ে নদীর তীর অবৈধ খণনকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মুনিবুর রহমান। তিনি আরও জানান, ওই নদীর পাড় থেকে অন্য যারা অবৈধভাবে মাটি কেটে ব্যবহার করছে তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply