আনন্দ ভ্রমণে আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জঃ পর্ব ১

|

আনুশ্রী মল্লিক

আপনি যদি প্রথমবার আন্দামান সফর করতে চান তবে কোথায় যাবেন এবং কী করবেন সে সম্পর্কে ইন্টারনেটে কিন্তু প্রচুর তথ্য পাওয়া যায়। তা সত্ত্বেও সিদ্ধান্ত নিতে পারছেন না। আর ছবিতে নিশ্চয় আন্দামান নিকবার আইল্যান্ডের নিখুঁত পরিস্কার নীল জল এবং সাদা বালির সৈকত দেখেছেন। যদি সম্ভব হতো তবে হয়তো এখনই উড়ে চলে যেতেন সেখানে । সুতরাং প্রথমবার যারা আন্দামান ভ্রমণ যাচ্ছেন বা ইচ্ছুক তারা কীভাবে নিখুঁত পরিকল্পনা করবেন সে প্রসঙ্গে কিছু পরামর্শ তুলে ধরা হলো।

আপনি কীভাবে আপনার ভ্রমণ পরিকল্পনা করতে চান?

ক) গ্রুপ প্যাকেজ :
কিছু ভ্রমণকারী গাইডেড গ্রুপে ভ্রমণ করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। আপনি আপনার মতো কিছু ভ্রমণ পিপাসু লোকজন চাচ্ছেন সেইসাথে চাচ্ছেন একজন গাইড যে কিনা সবাইকে পরিকল্পিত ও নিরাপদ, সুন্দর আর মজাদার ভ্রমণের অভিজ্ঞতা দেবে এবং সবাইকে কেয়ার করবে। এটি করতে হলে আপনি আপনার শহরের কোনও ট্যুর এজেন্সির কাছে যেতে পারেন বা বিশ্বস্ত কোন অনলাইন প্যাকেজ নিতে পারেন।

খ) রেগুলার প্যাকেজ:
আপনি আপনার পরিবার, বন্ধু এবং সহকর্মীদের জন্য কাস্টমাইজড প্যাকেজ করতে পারেন। এজন্য স্থানীয় ট্যুর অপারেটরের সাহায্য নিতে পারেন। যে জায়গাতে যাবেন সে জায়গা সম্পর্কে ভালমতো ধারণা আছে এমন একজন বেঁছে নিন নাহলে বিপদে পড়বেন।

গ) নিজের মতো করে : এখনকার জামানায় ইন্টারনেটে সবরকম তথ্যই সহজলভ্য। পছন্দ মতো বাজেট অনুযায়ী অনলাইন থেকে বিভিন্ন ট্রাভেল ওয়েবসাইট ঘেঁটে সহজে আপনার নিজের ট্রিপ বুক করুন।

আপনি যদি ‘ক’ অপশন পছন্দ করেন তবে পুরো পরিকল্পনাটি আপনার জন্য আগেই পরিকল্পনা করা থাকবে। আর যদি ‘খ’ বা ‘গ’ অপশন পছন্দ করেন, তবে আপনার কাছে কাস্টমাইজেশনের জন্য প্রচুর জায়গা রয়েছে। এরপর যা করতে হবে-

আপনার ফ্লাইটের টিকিট বুক করুনঃ
আন্দামান ভ্রমণের ফ্লাইট টিকিটগুলি বেশ দামি। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব অগ্রিম বুকিং দিয়ে ফেলুন, বিশেষত যদি ছাড় থাকে তবে আপনার প্রচুর অর্থ সাশ্রয় হবে।

কয়দিন থাকবেন তার পরিকল্পনা করুনঃ
আপনি যদি প্রথমবারের জন্য আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জে ভ্রমণে যেতে চান, তবে কমপক্ষে ৫ দিন থাকার প্রস্তুতি নিলে ভালো। পারলে আরও দুইদিন বাড়িয়ে একবারে এক সপ্তাহের ভ্রমণ সেরে ফেলুন।

আপনার বাজেট অনুযায়ী পরিকল্পনা করুনঃ
গুগুলে খুঁজলে অনেক কম দামে আপনার পছন্দমত বাজেটে সুলভ প্যাকেজ গুলো পেয়ে যাবেন। জন প্রতি ৩০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকারও প্যাকেজ আছে। হোটেল ভাড়া, কয়দিন থাকবেন, সেবা, খাবারের মান ও বিভিন্ন সাইট সিনের উপর প্যাকেজের মূল্য নির্ভর করে। সস্তা বা দামি এগুলোর চেয়ে বড় বিষয় হলো দিনশেষে এই ভ্রমণে আপনার অভিজ্ঞতা কেমন হলো আনন্দের না বিরক্তির?

এখন থাকছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সেরা অংশ – আপনার আসল আন্দামান ভ্রমনের অভিজ্ঞতাঃ

আন্দামানের বেশ কয়েকটি সৈকত রয়েছে যার বেশিরভাগ দৃষ্টির অগোচরে রয়ে গেছে । মানুষ সবসময় সেরাটাই চায়। যেমন আপনি সবচেয়ে সুন্দর জায়গাগুলো দেখতে চান আবার নিরিবিলি দ্বীপের অপূর্ব প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে চান। সেইসাথে স্কুবা ডাইভিং, চুনাপাথরের গুহাগুলির প্রাকৃতিক গৌরব এবং সেলুলার কারাগারে ইতিহাসের একটি টুকরো অন্বেষণ করতে চান। আর ভ্রমণ শেষে কোনও স্যুভিনির কিনবেন না তাতো হতেই পারে না। পোর্ট ব্লেয়ার এ এক দিনঃ

এ শহরের প্রধান আকর্ষণ হলো সেলুলার জেল। রাতে এখানকার সাউন্ড এবং লাইট শো দারুণ উপভোগ্য । আপনি আপনার ট্রিপটি এমনভাবে পরিকল্পনা করতে পারেন যাতে দিনের বেলা জেলটি ঘুরে দেখা যায়। চাইলে এখানে ছোটোখাটো শপিং করে নিতে পারেন। আর CARBYN’S COVE ও সৈকতে যেতে ভুলবেন না যেন তারপরে সন্ধ্যায় সাউন্ড এবং লাইট শো ধরুন।

নীল দ্বীপে ভ্রমণঃ

নীলের সীতাপুর, ভরতপুর এবং লক্ষ্মণপুরের মতো দুর্দান্ত কিছু সৈকত রয়েছে। এখানে বিখ্যাত হাওড়া ব্রিজ রয়েছে। সূর্যাস্ত দেখতে চাইলে এর থেকে ভালো জায়গা আর নেই। নীল দ্বীপে অন্তত একদিন থাকুন এবং দুর্দান্ত আন্দামান অভিজ্ঞতায় সিক্ত হন।

হ্যাভলকঃ

হ্যাভলকে রয়েছে রাধানগর সৈকত যা এশিয়ার সেরা এবং বিশ্বের ৮ম সেরা সমুদ্র সৈকত হিসাবে নির্বাচিত। জনপ্রিয়তার জন্য এখানে সবসময় টুরিস্টদের ভিড় লেগে থাকে। তবে তা সত্ত্বেও এটি অবশ্যই দেখার বস্তু। কোনমতেই বাদ দেয়া উচিত না। আর অবশ্য কাঁচের নৌকা ভ্রমণ করতে ভুলবেন না যেন।

স্কুবা ডাইভিংঃ

যারা একটু অ্যাডভেঞ্চার প্রিয় তাদের অবশ্যই স্কুবা ডাইভিং করা উচিত না হলে জীবনের সেরা অভিজ্ঞতার একটি মিস করবেন। যারা সাঁতার জানেন না তারা ভঁয় পাবেন না। এখানে অভিজ্ঞ প্রশিক্ষক দিয়ে ভালোভাবে প্রশিক্ষণ দিয়েই স্কুবা ডাইভিং করানো হয়। এছাড়া আরও অনেক মজার মজার ওয়াটার রাইড আছে। এখান থেকে রাতে পোর্ট ব্লেয়ার এ ফিরতে হবে।

চুনাপাথর গুহা / কাদার আগ্নেয়গিরিঃ

এই ট্রিপে যেতে হলে হোটেল থেকে বিকেল ৩ টার ভিতর বেরিয়ে পড়তে হবে। অরণ্যের মাঝে রাস্তা দিয়ে যেতে যেতে ম্যানগ্রোভ বন পেরিয়ে খুঁজে পাবেন দুটি আশ্চর্য প্রাকৃতিক বিস্ময়কর স্থান, চুনাপাথর গুহা আর কাদার আগ্নেয়গিরি। একই দিন বিকেল ৫ টায় পোর্ট ব্লেয়ারে ফিরে আসতে পারবেন। শর্ট ট্রিপের জন্য এই ট্যুর প্লানকে মোটামুটি আদর্শ বলা যায়। তবে হাতে সময় থাকলে আরও দুদিন বাড়িয়ে আন্দামানের অন্যান্য সৈকতগুলো ঘুরে নিতে পারেন।

আন্দামান ভ্রমণে কিছু প্রয়োজনীয় তথ্যাদিঃ

আন্দামান ভ্রমণের খোঁজখবরঃ Google Travel

Tour Package সম্বন্ধে জানতেঃ Experience Andamans









Leave a reply