শরীয়তপুরে স্পীডবোট সংঘর্ষ, আরও ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার

|

শরীয়তপুর প্রতিনিধি:

শরীয়তপুরের পদ্মা নদীতে নিষেধাজ্ঞা অমান্য ইলিশ ধরার সময় দুই স্পীড বোটের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনায় নিখোঁজ আরও তিন জন জেলের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জাজিরার বড়কান্দি এলাকার পদ্মা নদী থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃতরা হলেন জাজিরার পূর্বনাওডোবা কাদির মোড়লেরকান্দি গ্রামের আব্দুল মান্নান (৫৫), মুন্সিগঞ্জের লৌহজং উপজেলার উত্তর জমিলদিয়া গ্রামের বাচ্চু মাদবর (৩৫) ও ভোলার মনপুরা উপজেলার সেনারচর গ্রামের নিয়াজ উদ্দিন (৩৫)।

বুধবার ভোর রাতে জাজিরার পদ্মা নদীর ঝিনু মার্কেট এলাকায় মাছ শিকারের সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় স্বপন মোল্লা নামে একজন ঘটনাস্থলেই মারা যান। স্পীড বোট দুর্ঘটনায় এ নিয়ে ৪ জন জেলে মারা গেলেন। আহত রয়েছেন অন্তত ৮জন জেলে।

জাজিরা থানা ও স্থানীয় সূত্র জানায়,পদ্মা নদীর বিভিন্ন স্থানে নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে মা ইলিশ শিকার করা হচ্ছে। নৌকা,ইঞ্জিনচালিত নৌকার পাশাপাশি মা ইলিশ শিকার করতে দ্রুত গতির স্পীডবোট ব্যবহার করা হচ্ছে। গত ১৪ দিনে মৎস বিভাগ অভিযান চালিয়ে ২৩টি স্পীডবোট জব্দ করেছে। এছাড়াও পদ্মা ও মেঘনা নদীর ৭০ কিলোমিটার এলাকায় অন্তত অর্ধশত স্পীডবোট দিয়ে মা ইলিশ শিকার করা হচ্ছে।

জাজিরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বেলায়েত হোসেন বলেন, স্পীড বোট দুর্ঘটনায় নিখোঁজ আরও তিন জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের মধ্যে দুজনের লাশ স্বজনরা নিয়ে গেছেন। একজনের লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলা হবে এবং আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply