নির্বাচন নিয়ে যা বললেন শাকিব খান

|

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির দুবারের নির্বাচিত সভাপতি ছিলেন ঢাকাই ছবির এ মুহূর্তের সেরা নায়ক শাকিব খান। সর্বশেষ ২০১৭ সালের নির্বাচনে তার ওপর এফডিসিতে আক্রমণও হয়েছিল। অথচ তখনও তিনি সমিতির সদ্য বিদায়ী সভাপতি ছিলেন। এ নিয়ে মামলা-মোকদ্দমা হয়েছিল। পরবর্তী সময়ে দুপক্ষের সমঝোতায় বিষয়টি মিটে যায়। এরপর থেকে শিল্পী সমিতি নিয়ে শাকিব খানকে খুব বেশি কথা বলতে দেখা যায়নি। বরাবরই নিজের কাজ নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন এ নায়ক। যদিও এবারের নির্বাচনে সভাপতি পদে ফের প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার কথা শোনা গিয়েছিল বিভিন্ন সময়। কিন্তু শাকিব নিজ থেকে কখনও কিছুই বলেননি। শেষ পর্যন্ত তফসিল ঘোষণার পর নিশ্চিত হওয়া গেছে, নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন না এ নায়ক।

তবুও সমিতির সাবেক সভাপতি হিসেবে এবারের নির্বাচন কেমন দেখছেন এ নায়ক? শাকিব খান বলেন, ‘এটা নিয়ে আমার আসলে বলার তেমন কিছু নেই। শিল্পী সমিতি দিয়ে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির ভাগ্য পরিবর্তন হবে না। আমাদের নিজেদের কাজ করতে হবে।’
তবুও নির্বাচন নিয়ে প্রত্যাশা কী? এমন প্রশ্নে শাকিব বলেন, ‘নির্বাচন এখন কেমন হয় সেটা তো গত নির্বাচনেই দেখা গেছে। এ নির্বাচনটিকে অনেকেই জাতীয় নির্বাচনের চেয়েও বড় করে দেখছেন। কিসের মোহে শিল্পীদের মধ্যে বিভাজন তৈরি করা হচ্ছে সেটাই আমি বুঝি না। শিল্পী সমিতির মধ্যে কী আছে? আমি তো দুবার সভাপতি ছিলাম। কই, কিছুই তো দেখিনি। বরং সমিতিকে সময় দিতে গিয়ে আমার কাজে ব্যাঘাত ঘটেছে। সুতরাং শিল্পী সমিতির নির্বাচন নিয়ে আমার কোনো মাথাব্যথা নেই। তবে নির্বাচন যাতে সুষ্ঠু ও সুন্দর হয় সেটাই কামনা করি। এরই মধ্যে মৌসুমী আপুসহ অন্যদের সঙ্গে যেসব ঘটনা ঘটে গেছে সেগুলো দুঃখজনক। সবাই শিল্পী। কাউকে বঞ্চিত করে কেউ ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারে না। বিষয়টি ক্ষুদ্র হলেও জাতীয় কিংবা আন্তর্জাতিক পর্যায়ের ইতিহাস থেকে এ ব্যাপারে সবারই শিক্ষা নেয়া উচিত।’


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply