ভোলায় নিহতদের দাফন সম্পন্ন

|

ভোলার বোরহানউদ্দিনে পুলিশ-জনতা সংঘর্ষে নিহত ৪ জনের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। সংঘর্ষ এবং নিহতের ঘটনায় এখনো থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে এলাকাজুড়ে।

রোববার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে জানাজা শেষে নিজ নিজ এলাকায় নিহতদের দাফন সম্পন্ন হয়। এর আগে, রাতেই বোরহানউদ্দিন থানায় প্রশাসনের সঙ্গে এক রুদ্ধদ্বার বৈঠকে বসে জেলা আলেম সমাজের নেতৃবৃন্দ। বৈঠকে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে আপত্তিকর আলাপকারীর ফাঁসি, নিহতদের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা এবং আহতদের চিকিৎসার ব্যয় বহনের দাবিসহ বেশ-কয়েকটি দাবি তুলে ধরা হয়।

এসময় প্রশাসন তাদের সব দাবি মেনে নিলে কর্মসূচির সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার আশ্বাস দেন তারা। তবে এখনো থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে এলাকাজুড়ে। অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে মোতায়েন আছে আইনশৃঙ্খলাবাহিনী। এ ঘটনায় বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজিকে প্রধান করে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। দাবি না মানলে জেলা স্কুল মাঠে প্রতিবাদ সমাবেশেরও হুঁশিয়ারি দেয়া হয়।

সম্প্রতি বিপ্লব নামের এক যুবকের ফেইসবুকে থেকে বিভিন্নজনের কাছে মহানবীকে কটূক্তি করে মেসেজ পাঠানো হয়। পরে এটি ফেসবুকে তুলে ধরে প্রতিবাদ জানান অনেকে। এরইমধ্যে বিপ্লব স্বেচ্ছায় থানায় গিয়ে আইডি হ্যাক হওয়ার কথা জানায়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে। আটক করা হয়েছে হ্যাকিংয়ে সম্পৃক্ত সন্দেহভাজনদেরও। এদিকে, এই ঘটনার প্রতিবাদে রোববার সকালে বোরহানউদ্দিনের ঈদগাঁ মসজিদ প্রাঙ্গণে তাওহীদী জনতার ব্যানারে বিক্ষোভ-সমাবেশের আয়োজন করা হয়। এতে বাঁধা দিলে পুলিশের সাথে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে তারা। চলে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া। ফাঁকা গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ। সংঘর্ষের ঘটনায় ৪ জন নিহত হয়েছে। পুলিশ সদস্যসহ আহত হয়েছে শতাধিক ।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply