ইসরায়েলের সাথে সম্পর্ক গড়তে খেলাধুলাকে হাতিয়ার করছে সৌদি

|

চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে বেশ কয়েকটি আরব দেশই ইসরায়েলের সাথে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার প্রচেষ্টায় লিপ্ত আছে তাদের মধ্যে সৌদি আরবের নাম বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।

আর ইসরায়েলের সাথে সেই সম্পর্ক আরো এগিয়ে নিতে এখন খেলাধুলাকে হাতিয়ার করছে সৌদি।

সোমবার ইসরায়েল অধিকৃত পশ্চিমতীরে পা রাখার পরের দিন পূর্ব জেরুজালেম-সংযুক্ত আল-আকসা মসজিদে গিয়ে ফিলিস্তিনিদের ক্ষোভ জাগিয়ে তুলেছেন সৌদি প্রতিনিধিরা।

মঙ্গলবার ফিলিস্তিনের রামাল্লায় সৌদি ফুটবল দলের সঙ্গে একটি ম্যাচ খেলবেন ফিলিস্তিনিরা। ২০২২ সালের কাতার বিশ্বকাপ ও পরের বছরের এশিয়া কাপের বাছাইপর্বের এই ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে শহরটিতে।

এর মধ্যে দিয়ে সৌদি প্রতিনিধিরা প্রথমবারের মতো অধিকৃত ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে প্রবেশ করলেন। মূলত ইহুদিবাদী রাষ্ট্রটির মৌন সম্মতি নিয়েই ফিলিস্তিনে আসলেন সৌদিরা।

ইহুদিদের একটি উৎসবের সময় সৌদিরা আল-আকসা পরিদর্শনে যান। এ সময়ে মসজিদটিতে ফিলিস্তিনিদের প্রবেশ সীমিত করে দেয় ইসরাইলি বাহিনী।

এক বিবৃতিতে ফিলিস্তিনের বর্জন, পরিত্যাগ ও নিষেধাজ্ঞা জাতীয় কমিটি (বিএনসি) বলছে, ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে ভিসা আবেদন করায় সৌদি ফুটবল দলের সফর ইসরাইলকে বর্জনের নীতি পুরোপুরি লঙ্ঘন করেনি।

ফিলিস্তিনে যেতে হলে সব ধরনের ভিসা আবেদনের ক্ষেত্রে ইসরাইলি কর্তৃপক্ষের চূড়ান্ত অনুমোদন দরকার পড়ে। তার অর্থ দাঁড়ায়, পশ্চিমতীরে ঢুকতে সৌদিদের পরোক্ষভাবে সবুজ সংকেত দিয়েছে ইসরাইল।

ইসরাইলকে বর্জনে যেসব ক্ষেত্রে আরবদের ঐক্যমত রয়েছে, সেসবকে তুচ্ছ করেই সৌদিরা এই সফরে বলে মনে করেন অধিকাংশ ফিলিস্তিনি।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply