সেই মুখচোরা, ফুটবলপ্রেমী ছেলেটিই নোবেল বিজয়ী!

|

কলকাতায় এখন জয়ধ্বনি চলছে। আর চলবেই না কেনো? কলকাতা শহরেরই সন্তান অভিজিৎ ব্যানার্জি এ বছর নোবেল পুরস্কার অর্জন করেছেন অর্থনীতিতে। মুখচোরা অথচ চোখ ভরা দীপ্তি- সহপাঠী এবং স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকাদের চোখে অভিজিৎ ব্যানার্জির এই রূপটাই যেন ভাসছে। দক্ষিণ কলকাতার সাউথ পয়েন্ট স্কুলের সেই অন্তর্মুখী ছাত্রই আজ এমআইটির অধ্যাপক, বিশ্বের গর্ব!

অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সহপাঠী শর্মিলা দে বলেন, ১৯৭১ থেকে ১৯৭৮ সাল পর্যন্ত সাউথ পয়েন্টের একই শ্রেণিকক্ষে পড়াশোনা করতেন তারা, আজ সেই দিনগুলোর কথা ভেবে অত্যন্ত গর্ববোধ করছেন তিনি অভিজিৎ অঙ্কের ক্লাসে যেভাবে সমস্যার সমাধান করত তা দেখে আমরা সবসময়ই অভিভূত হয়েছি। পুঁথিগত শিক্ষার বাইরে অভিজিৎ খেলাধুলায় বিশেষত ফুটবলে অত্যন্ত আগ্রহী ছিল।

অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের গণিত শিক্ষক দীপালি সেনগুপ্ত অভিজিতের ছাত্রাবস্থার দিনগুলির কথা স্মরণ করে বলেন, ক্লাস ৮-এ ভীষণই অন্তর্মুখী, শান্ত ছেলে ছিল অভিজিৎ। ওকে ঠিক বোঝা যেত না। তবে যেভাবে ক্লাসে সমস্ত অঙ্ক সহজেই সমাধান করে ফেলত তা তাজ্জব করে দেওয়া মতোই।

দীপালি বলেন, ওই অল্প বয়সেই উজ্জ্বল ভবিষ্যতের আভাস দেখিয়েছিল অভিজিৎ। স্কুলের পরে কি আর যোগাযোগ রয়েছে নোবেল বিজয়ীর সঙ্গে? এ প্রশ্নের উত্তরে প্রবীণ শিক্ষিকা জানান, এখন আর যোগাযোগ নেই অভিজিতের সঙ্গে। আমি আশা করি অভিজিৎ এখনও স্কুলে তার গণিতের শিক্ষকের কথা মনে রেখেছে।

উল্লেখ্য, ভারতীয়-আমেরিকান অভিজিৎ ব্যানার্জি, এস্থার ডাফ্লো এবং মাইকেল ক্রেমার যৌথভাবে ‘বিশ্বজুড়ে দারিদ্র্য বিমোচনে পরীক্ষামূলক পদ্ধতির জন্য’ সোমবার ২০১৯ সালের নোবেল অর্থনীতি পুরস্কার অর্জন করেছেন।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply