দারিদ্র্য লাঘবে কাজ করে স্বামী-স্ত্রীর নোবেল জয়

|

বৈশ্বিক দারিদ্র্য লাঘবে অবদান রাখায় চলতি বছর অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন এক ভারতীয়সহ তিন অর্থনীতিবিদ। সোমবার স্টকহোমে দ্য রয়্যাল সুইডিশ একাডেমি অব সায়েন্সেস এ পুরস্কার ঘোষণা করে।

নোবেল কমিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়, দারিদ্র্য লাঘবে পরীক্ষামূলক গবেষণার কারণে ভারতের অভিজিত ব্যানার্জি, এস্তার দুফলো এবং মাইকেল ক্রেমারকে অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে অভিজিত ও দুফলো স্বামী-স্ত্রী।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন নাগরিক অভিজিত ব্যানার্জি যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির (এমআইটি) অধ্যাপক। এছাড়া ফরাসী বংশোদ্ভূত মার্কিন নাগরিক এস্তার দুফলো এমআইটির অধ্যাপক এবং অপর বিজয়ী মাইকেল ক্রেমার যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক ও হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক।

দ্বিতীয় নারী অর্থনীতিবিদ হিসেবে অর্থনীতিতে নোবেল পেলেন দুফলো। সর্বকনিষ্ঠ অর্থনীতিবিদ হিসেবে অর্থনীতিতে নোবেল পাওয়ার কৃতিত্বও দেখালেন তিনি। ৪৬ বছর বয়সে অর্থনীতিতে নোবেল পাওয়া দুফলোর স্বামী অভিজিতের বয়স ৫৮।

১৯৬৮ সালে সুইডিশ কেন্দ্রীয় ব্যাংক সেভেরিজেস রিক্সব্যাংক তাদের ৩০০ বছর পূর্তিতে নোবেল ফাউন্ডেশনকে একটি বিরাট অঙ্কের অর্থ দান করে। তারপর সেই অর্থ দিয়ে ১৯৬৯ সাল থেকে আলফ্রেড নোবেল এর সম্মান রক্ষার্থে অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার প্রদান করা হয়।

২০১৯ সালের নোবেল বিজয়ীদের নাম ঘোষণা শুরু হয়েছে গত ৭ অক্টোবর থেকে। ওইদিন স্টকহোম ক্যারোলিনস্কা ইনস্টিটিউট থেকে চিকিৎসাবিদ্যায়, দ্য রয়াল ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স থেকে ৮ অক্টোবর পদার্থবিদ্যায় এবং ৯ অক্টোবর রসায়নে নোবেল বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply