যুক্তরাষ্ট্রের শত্রুর সাথে চুক্তি করলো বিশ্বাসঘাতকতার শিকার কুর্দিরা

|

মার্কিনীদের কাছে বিশ্বাসঘাতকতা শিকার হয়েছেন সিরিয়ান কুর্দি বিদ্রোহীরা। দুদিন আগে এমনটাই বলেছিলেন বিদ্রোহীদের নেতা জেনারেল মজলুম কোবানি আব্দি।

ওই সময় তিনি বলেছিলেন যদি যুক্তরাষ্ট্র তাদেরকে তুরস্কের বোমা হামলা থেকে না রক্ষা করে তাহলে তারা রাশিয়া ও সিরিয়ান সরকারের সাথে চুক্তি করবে। ঠিক তাই হলো। প্রাথমিকভাবে সিরিয়ান সরকারের সাথে সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর করলো কুর্দি নেতারা।

অথচ এতদিন আমেরিকানদের হয়ে বাশার আল আসাদের বিরুদ্ধে লড়ছিলো কুর্দি বিদ্রোহীদের সংস্থা ওয়াইপিজি। সিরিয়ায় বাশার আল আসাদ মার্কিনীর প্রতিপক্ষ। চিরশত্রু যুক্তরাষ্ট্রের হুমকির মুখে রুশদেরকে দেশটিতে ডেকে নেন ইরানের মদদপুষ্ট আসাদ।

এরফলে ২০১১ সাল থেকে শুরু হওয়া গৃহযুদ্ধে হাজারো মানুষ হত্যায় অভিযুক্ত আসাদ গদিতে টিকে যান। অন্যদিকে আইএসের বিরুদ্ধে মার্কিন যুদ্ধে সম্মুখ যুদ্ধে সবেচেয়ে কার্যকরী ভূমিকায় ছিলো সিরিয়ান কুর্দিরা।

কিন্তু তুরস্কের সীমান্ত এলাকায় তারা হুমকি তৈরি করায় আঙ্কারা একাধিকবার সিরিয়ার অভ্যন্তরে সামরিক অভিযান চালিয়েছে। সর্বশেষ গত সপ্তাহে শুরু হওয়া অভিযানের একমাত্র লক্ষ্য কুর্দি যোদ্ধাদেরকে সীমান্ত থেকে ৩০ কিলোমিটার দূরে তাড়িয়ে দেয়া।

সেই লক্ষ্যে ইতোমধ্যে দুটি শহর দখলে নিয়েছে তুর্কি সেনাবাহিনী। অভিযান শুরুর আগে তুরস্কের ন্যাটো মিত্র কুর্দি অধ্যুষিত উত্তর সিরিয়া থেকে নিজেদের সেনাদের প্রত্যাহার করে নেয়। এরপরই বিলম্ব না করে একই সাথে আকাশপথে ও ভূমিতে হামলা শুরু করে তুর্কি সেনাবাহিনী ও তাদের মদদপুষ্ট সুন্নী বিদ্রোহীরা।

এদিকে সিরিয়ান কুর্দিরা জানিয়েছে, তুরস্কের সামরিক অভিযান মোকাবিলায় সিরিয়ার সরকারের সঙ্গে তাদের একটি সমঝোতা হয়েছে। সমঝোতা অনুসারে সিরিয়ার সরকার দেশটির উত্তরাঞ্চলে সেনা পাঠাবে তুরস্কের অভিযান ঠেকাতে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply