স্বামীর সাথে ঝগড়া: কন্যা শিশুকে পুকুরে ছুঁড়ে হত্যা করলো মা

|

স্টাফ রিপোর্টার, মাদারীপুর

মাদারীপুরের কালকিনি পৌর এলাকার দক্ষিণ ঠেঙ্গামাড়া গ্রামের একটি পুকুর থেকে ১৪ দিনের জামিলা নামের এক নবজাতক কন্যাশিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে পুলিশের দাবি শিশুটির মা ময়না আক্তার (২২) শিশুটিকে পানিতে ফেলে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন। এ ঘটনায় ওই ঘাতক মা ময়না আক্তারকে আটক করেছে থানা পুলিশ। রোববার বিকেলে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, জেলার কালকিনি পৌরসভার দক্ষিণ ঠেঙ্গামাড়া গ্রামের সত্তার সরদারের ছেলে সুজন সরদার দীর্ঘদিন যাবত বিদেশ থাকেন। এ নিয়ে তাদের সংসারে স্বামী-স্ত্রীর বিরোধ চলে আসছে। এরই জের ধরে সুজনের স্ত্রী ময়না আক্তার রবিবার দুপুরে তার ১৪ দিনের নবজাতক কন্যা জামিলাকে সবার অলক্ষ্যে বাড়ির পাশের পুকুরে ফেলে দেন। পরে পরিবারের লোকজন ও এলাকাবাসী পুকুরে ওই নবজাতকের লাশ দেখতে পান। খবর পেয়ে কালকিনি থানা পুলিশ ওই শিশুটির মা-বাবাসহ পরিবারের অন্য সদস্যদের জিজ্ঞাসাবাদ করেন। একপর্যায়ে মা ময়না তাঁর শিশুটিকে পুকুরে ফেলে দিয়েছেন বলে পুলিশের কাছে স্বীকার করেন। এ ঘটনায় পুলিশ ওই ঘাতক মা ময়না আক্তারকে আটক করেন।

শিশুটির বাবা সুজন সরদার বলেন, ‘আমরার সংসারে কোন অভাব নাই। আমার বউ কেন যে এই ঘটনা ঘটাইলো জানিনা।

কালকিনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোফাজ্জেল হোসেন বলেন, নবজাতককে পুকুরের পানিতে ফেলে দেওয়ার কথা শিশুটির মা ময়না স্বীকার করেছেন। তাঁকে আটক করা হয়েছে। তবে কেন হত্যা করেছেন, সে বিষয়ে তিনি মুখ খুলছেন না। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply