অক্সফোর্ড অভিধানে বর্ষসেরা শব্দ ‘ইয়ুথকোয়েক’

|

‘আর্থকোয়াক’ (earthquake) এর বঙ্গানুবাদ ‘ভূকম্পন’ বা ‘ভুমিকম্প’। তাহলে ‘ইয়ুথকোয়েক’ (youthquake) এর বাংলা কী হবে ‘যুবকম্পন’? ‘তারুণ্যকম্প’? হতে পারে। আবার নাও হতে পারে। এটা অভিধানবিদদের সিদ্ধান্তের বিষয়। তবে চুড়ান্ত বঙ্গানুবাদ যাইহোক, মূল বিষয়টা এমনই। অর্থাৎ, ‘তরুণদের দ্বারা যে কম্পন সৃষ্টি হয়’ সেটিই ‘ইয়োথকোয়াক’।

অক্সফোর্ড অভিধান ‘ইয়ুথকোয়েক’ (Youthquake)-কে ২০১৭ সালের সেরা শব্দ ঘোষণা করেছে। এক বছরে এই শব্দটির ব্যবহার পাঁচ গুণ বেড়েছে বলে তারা জানিয়েছে।

অক্সফোর্ড অভিধানে ইয়ুথকোয়েকের অর্থ বলা হয়েছে, “ব্যাপক মাত্রায় তরুণদের অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও সামাজিক পরিবর্তন।”

গত জুন মাসে ব্রিটেনের সাধারণ নির্বাচনে ‘ইয়ুথকোয়েক’ শব্দটির ব্যবহার দেখা যায়। পরবর্তীতে সেপ্টেম্বর মাসে নিউজিল্যান্ডের সাধারণ নির্বাচনের সময় শব্দটির ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায়। তবে যুক্তরাষ্ট্রে এখনো শব্দটির তেমন ব্যবহার দেখা যাচ্ছে না।

১৯৬৫ সালে ভোগ ম্যাগাজিনের সম্পাদক ডায়ানা ভ্রিল্যান্ড সর্বপ্রথম ‘ইউথ’ ও ‘কোয়েক’ শব্দ দুটিকে এক সঙ্গে জুড়ে দেন। ফ্যাশন ও সংগীতের তরুণদের মধ্যে সেসময় রুচির ব্যাপক পরিবর্তন বোঝাতে তিনি এই শব্দটি তৈরি করেছিলেন। এর আগে ২০১৬ সালে ‘পোস্ট-ট্রুথ’, ২০১৫ ‘সালে ফেস ইউথ টিয়ারস অব জয়’ ইমোজি, ২০১৪ সালে ‘ভেপ’, ২০১৩ সালে ‘সেলফি’ ও ২০১২ সালে ‘অমনিশ্যামবলস’ ব্রিটেনে ও ‘জিআইএফ’ যুক্তরাষ্ট্রে বর্ষসেরা শব্দ নির্বাচিত হয়েছিল।

 

অন্যদিকে কলিন’স অভিধান ‘ফেকনিউজ’ ও আমেরিকান ম্যারিয়াম ওয়েবস্টের ‘ফেমিনিজম’ শব্দ দুটিকে ২০১৭ সালে সেরা শব্দ হিসেবে নির্বাচিত করেছে।

 









Leave a reply