নাজমুলের সম্পদের খোঁজ নেয়া হবে: দুদক

|

জি কে শামীম, খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া ও শফিকুল আলম ফিরোজ, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সিদ্দিকী নাজমুল আলমসহ বেশ কয়েকজন নেতার অবৈধ সম্পদের হিসাব নিবে দুদক।

দুপুরে ক্যাসিনো হোতাদের অবৈধ সম্পদের হিসাব নেয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানায় দুর্নীতি দমন কমিশন। ক্যাসিনো ব্যবসা, চাঁদাবাজি, টেন্ডার বাণিজ্য, কমিটি বাণিজ্যসহ নানা অপকর্ম করে অঢেল সম্পদ গড়ার অভিযোগ তাদের বিরুদ্ধে।

দুদক সচিব জানান, কাদের সম্পদের হিসাব নেয়া হবে তার সুনির্দিষ্ট তালিকা হয়নি। অনুসন্ধানকারী দল অবৈধ সম্পদ অর্জনকারীদের তালিকা করবে। সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সিদ্দিকী নাজমুলের সম্পদের বিষয়েও খোঁজ নেয়ার কথা জানান তিনি। ইতিমধ্যে জি কে শামীম ও খালেদ মাহমুদ ভুঁইয়া ও শফিকুল আলম ফিরোজ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে আটক রয়েছে। আর সম্রাট রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরদারিতে।

জানা গেছে দুদকের প্রাথমিক তদন্তে এসব ব্যক্তিদের অঢেল অবৈধ সম্পদের খোঁজ মিলেছে।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি লন্ডনে বসবাসরত সাবেক ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলমের বিপুল সম্পদের বিষয়ে সংবাদমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়।

গত শনিবার এর প্রেক্ষিতে নিজের ফেসবুক একাউন্টে এক পোস্টে প্রতিবেদন তৈরি সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি। তবে ক্ষোভ প্রকাশের সাথে সাথে ওই সাংবাদিককে ‘মাফ’ও করে দিয়েছেন।

একটি সংবাদমাধ্যমে ‘লন্ডনে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নাজমুলের চার কোম্পানি!’ শিরোনামে প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে ফেসবুকে নাজমুল লিখেছেন–

“তামাশা ????????লন্ডনে একটা কোম্পানি খুলতে খরচ হয় ১২ পাউন্ড

৪ টি কোম্পানি খুলতে খরচ হয়েছে ৪৮ পাউন্ড বাংলা টাকায় প্রায় ৪৯০০ টাকা যা সিটি কর্পোরেশনের ট্রেড লাইসেন্স খুলার চাইতেও কম । আর অপরিশোধিত মূলধন হিসেবে চাইলে আপনি যা ইচ্ছা দেখাতে পারবেন তারপরও আমার কোন কোম্পানির অপরিশোধিত মূলধনের পরিমান ৫/৭ হাজার পাউন্ডের বেশী নয় অথচ কি কাল্পনিক নিউজ ? আর কোম্পানী যুক্তরাজ্যে চাইলে যে কেউ খুলতে পারে জাস্ট ২০ মিনিট সময় লাগে অনলাইনে ।

আমার কোম্পানিগুলোর নাম তো সবাই পেলেন এখন Companyhouse.gov.uk এখানে গিয়ে দেখলেই বুঝবেন সংবাদের সত্যতা কতটুকু । আরেকটা কথা যুক্তরাজ্যে চাইলেই কেউ কোটি কোটি পাউন্ড ইনভেস্ট করতে পারেনা ।

আর যে কোম্পানির কথা বলছেন ১০ কোটি টাকার সেটা এক্ষন ঐ সাংবাদিকের কাছে বিক্রি করতে চাই বিনামূল্যে। যদি কোন মায়ের বুকের দুধ খেয়ে থাকেন চ্যালেন্জ গ্রহন করুন আমি বললাম তো ঐ কোম্পানীতে এক টাকাও বিনয়োগ করা হয়নি শুধু নাম দিয়ে কোম্পানী খুলে রেখেছি ।
মামলা করলে এদেশে কি পরিনতি হয় তা তো জানেন পন্ডিত সাহেব ?
দিলামনা আপনার পেটে লাথ্থি কারন হয়তোবা এস্যাইলাম মেরে থাকতেছেন এই দেশে হাজার মাইল দুরে রেখে আসা পরিবারের মুখে হাসি ফোটাতে।

আমি চাইলেই পন্ডিত মহাশয়কে আইনের মাধ্যমে শায়েস্তা করতে পারি আবারও মাফ করে দিলাম কারন অভ্যাস হয়ে গেছে ।
লায়ার! লল !!!!!!!!!!!!”


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply