বিচার চেয়ে থানায় হনুমান দল, তদন্তের আশ্বাস ওসির

|

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর
কেশবপুরের বিরল প্রজাতির কালোমুখো লেজ লম্বা হনুমান বিচার চেয়ে থানায় আসলে তদন্তের আশ্বাস দেয় ওসি।

জানা যায়, একটি শিশু হনুমানকে কে বা কারা পিটিয়ে আহত করায় হনুমান দল থানা ঘেরাও করে। তারা প্রায় এক ঘন্টা থানার গেটের সামনে অবস্থান করে অবরোধ করে রাখে।

কেশবপুর থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই কামরুজ্জামান বলেন, থানার গেটের সামনে একদল হনুমান দেখে বাইরে বেরিয়ে গিয়ে দেখি দুটো মেয়ে হনুমান দেয়ালের একপাশে আলাদা বসে আছে। তাদের একজনের কোলে একটি রক্তাক্ত আহত শিশু হনুমান। তখন আমি বুঝতে পারি বাচ্চাটিকে মারধর করে আহত করা হয়েছে এবং আহত করার অভিযোগ জানাতেই হনুমান দল থানায় এসেছে।

তিনি আরও জানান, ২০ থেকে ২৫টি হনুমান দলবদ্ধভাবে থানার গেটের সামনে ও ডিউটি অফিসারের কক্ষে অবস্থান নেয়। আমি হনুমান দলের সামনে দাঁড়িয়ে বাচ্চা হনুমানের ওপর হামলাকারীদের বিষয়ে দেখবো বলে আশ্বাস দেই। প্রায় এক ঘন্টা অবস্থানের পর কিছু খাবার দিলে খেয়ে তারা চলে যায়।

এরআগে ৫/৬ বছর আগে শহরের জনৈক ব্যক্তি একটি হনুমানকে ইয়ার গানের গুলি করে হত্যা করে। সেই সময় হনুমান দল তার বাড়ির ছাদে গিয়ে লাফালাফি ও ঝাপাঝাপি করে গাছের ডাল ভাঙচুর করে। কয়েক বছর আগে অজ্ঞাত কেউ একটি হনুমানের লেজ কেঁটে দেয়। ওই সময়ও হনুমানরা দল বেঁধে থানার ভেতর গিয়ে ঘেরাও করে ছিল। ৪ বছর আগে নছিমনের ছাপায় একটি বাচ্চা হনুমান মারা গেলে প্রায় এক সপ্তাহ ধরে মা হনুমানটি হাসপাতাল রোডে অবস্থান করে প্রতিটি চলন্ত নছিমনের ওপর হামলে পড়ে চাকা কাঁমড়াতে থাকে। এমন অনেক প্রতিবাদের নজির স্থাপন করেছে কেশবপুরের হনুমানরা।

উপজেলা বন কর্মকর্তা আব্দুল মোনায়েম হোসেন জানান, প্রতিদিন ৩৫ কেজি কলা, ২ কেজি বাদাম ও ২ কেজি পাউরুটি চারটি পয়েন্টে দেয়া হয়।









Leave a reply