যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ

|

পটুয়াখালী প্রতিনিধি:

যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সম্পাদক অ্যাডভোকেট শামিম আল সাইফুল সোহাগের বিরুদ্ধে পাঁচ হত দরিদ্র পরিবারের জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে। শনিবার দুপুরে পটুয়াখালীর কলাপাড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ এনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বালিয়াতলী ইউনিয়নের দক্ষিণ বালিয়াতলী গ্রামের ইনারা বেগম।

লিখিত বক্তব্যে ইনারা বলেন, পাঁচটি বন্দোবস্ত কেসের মাধ্যমে সরকার তাদের সাড়ে সাত একর খাস জমি বন্দোবস্ত দেয়। তারা ওই জমিতে বসবাসসহ চাষাবাদ করে আসছিলেন। যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা শামিম আল সাইফুল সোহাগ ক্ষমতার অপব্যবহার করে সোনাপাড়া মৌজার খাস খতিয়ান ৩১৯১/৩১৯ নং দাগের পাঁচ একর জমি ভূমি অফিসকে ভুল তথ্য দিয়ে ডিসিআর কেটে মাছের ঘের করেন। সাত বছর আগে তার ডিসিআরের মেয়াদ শেষ হলেও ক্ষমতার অপব্যবহার করে তাদের জমি দখলে নেয়ার চেষ্টা চালায়। এর প্রতিবাদ করায় ঢাকা, পটুয়াখালী ও কলাপাড়ায় এসব দরিদ্র পরিবারের নামে ১১টি মামলা করা হয়েছে। শুধুমাত্র হয়রানি করতে এমনটি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করা হয়।

ইনারা বেগমসহ ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর দাবি, সোহাগের সন্ত্রাসী বাহিনী মাকিত, রিপন, মাসুদ ও খলিল তাদের প্রতিনিয়ত হুমকি দিচ্ছে।

সোহাগের রোষানল থেকে মুক্তি পেতে প্রধানমন্ত্রীসহ প্রশাসনের হস্তক্ষেপ চেয়েছেন তারা। এদিকে, যুবলীগ নেতা অ্যাডভোকেট শামিম আল সাইফুল সোহাগ তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, তিনি ওই পাঁচ পরিবারের জমিতে কোনো ধরনের কর্মকাণ্ড চালাচ্ছেন না। অন্য কেউ তাদেরকে দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করিয়ে তাকে হেনস্থা করাচ্ছে বলেও পাল্টা অভিযোগ আনেন তিনি।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply