রোহিঙ্গারা বাংলাদেশি: অং সান সুচি

|

২০১৩ সালে এক বৈঠকে রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশি বলে মন্তব্য করেছিলেন মিয়ানমারের গণতন্ত্রপন্থী নেত্রী অং সান সুচি। খবর জার্মান গণমাধ্যম ডয়েচে ভেলে’র।

সম্প্রতি নিজের স্মৃতিকথা ‘ফর দ্যা রেকর্ড’ এ কথা উল্লেখ করেছেন যুক্তরাজ্যের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন।

মিয়ানমারের স্বাধীনতার পর ২০১৩ সালে প্রথম কোন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মিয়ানমার ভ্রমণ করেন তৎকালীন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন। সেসময় সুচি’র সাথে আলাপচারিতার সময় সুচি এ মন্তব্য করেন তার কাছে, আর এ নিয়ে যথেষ্ট বিরক্তও হয়েছেন ব্রিটিশ এই প্রধানমন্ত্রী এমনটাই উল্লেখ করেন নিজের স্মৃতিকথায়।

ক্যামেরন উল্লেখ করেন, ‘‘আমি গণতন্ত্রপন্থি নেত্রী অং সান সু চির সঙ্গে বৈঠক করি৷ তিনি শিগগিরই প্রেসিডেন্ট পদে লড়াই করবেন৷ ১৫ বছরের গৃহবন্দিত্ব থেকে সত্যিকার গণতন্ত্রের পথে যাত্রা, তার এই দারুণ গল্প নিয়েই আমরা কথা বলেছি৷”

ক্যামেরন আরও উল্লেখ করেন, ‘‘কিন্তু ২০১৩ সালের অক্টোবরে সু চি যখন লন্ডন সফরে আসেন, সবার চোখ তখন রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর৷ বুদ্ধ রাখাইনরা তাদের নিজ বাসস্থান থেকে তাড়িয়ে দিচ্ছিলো৷ ধর্ষণ, হত্যা, জাতিগত নিধনসহ অনেক কিছুই আমরা শুনেত পাচ্ছিলাম৷ আমি তাকে বললাম, বিশ্ব সব দেখছে৷ তিনি উত্তর দিলেন, ‘তারা আসলে বার্মিজ নয়৷ তারা বাংলাদেশি৷’ এরপর ২০১৫ সালে তিনি মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় নেতা হলেন, রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সহিংসতা চলতেই থাকলো৷”

২০১০ সাল থেকে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন ক্যামেরন৷ ২০১৬ সালে গণভোটে ব্রেক্সিটপন্থিদের জয়ের পর পদত্যাগ করেন তিনি৷









Leave a reply