একান্ত সাক্ষাৎকারে মোস্তাফিজ

|

তাহমিদ অমিত:

আসলেন, দেখলেন আর জয় করলেন; কথাগুলো পুরোটা মিলে যায় কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমানের সাথে। আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে ৪ বছর পার করা ফিজ বলছেন, অবসরের সময় শত শত উইকেট ঝুলিতে নেয়ার লক্ষ্য না। বরং একজন ভালো মানুষ হিসেবে বিদায় নিতে চান ক্রিকেট অঙ্গন থেকে। টেস্টে ভালো করতে বেশি বেশি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলা আর ফিটনেসে উন্নতির তাগিদ এই পেসারের। আরও জানালেন বিয়ে তাকে বদলাতে পারেনি।

ক্রিকেট ক্যারিয়ার নিয়ে তার ভাবনার কথা জানতে চাইলে যমুনা নিউজকে ফিজ বলেন, বিদায়ের সময় শত উইকেট চাই না, বরং মানুষ যেন বলে আমি ভালো মানুষ ছিলাম।

এক সময় ছিলেন গ্রামের দুরন্ত কিশোর মোস্তাফিজ, সেখান থেকে এখন তারকা ‘ফিজ’ পার্থক্যটা কেমন? ফিজ জানালেন, আমি এখন সব জায়গায় ঘুরতে যেতে পারি না, তবে আড্ডা দেই। গ্রামের বাসায় গেলে অনেক লোক দেখতে আসে। যেটা আগে হতো না

বিয়ে নাকি মোস্তাফিজকে পরিবর্তন করতে পারেনি। জানালেন, বিয়ের আগে যেমন ছিলাম এখনও তেমনি আছি। জীবনে খুব বেশি পরিবর্তন আসেনি। এখনও নিয়মিত ভাত খান মোস্তাফিজ। সরল স্বীকারোক্তি, ভাই, বাঙালি তো, ভাত ছাড়তে পারিনি।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্টে বাংলাদেশ দলে কোনো পেসার ছিল না। এর কারণ কী মনে করেন কাটার মাস্টার? জানালেন, প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে পেসারদের ব্যবহার করা হয় কম। পেসারদের বেশি সুযোগ দিতে হবে। তাহলে যেকোনো পিচে জাতীয় দলের হয়ে তারা সার্ভিস দিতে পারবে।

তরুণদের জন্য তার পরামর্শ পরিশ্রমের ক্ষেত্রে কোনো কমতি রাখা যাবে না। জানালেন, তিনি যে লোকাল বাস থেকে এখন গাড়িতে চড়েন এর মূল কারণ শ্রম।









Leave a reply