‘নিখোঁজ চন্দ্রযানের সাথে দ্রুতই যোগাযোগ করা যাবে’

|

অনেক ঢাক-ঢোল পিটিয়ে আশায় ফুলঝুড়ি ছুটিয়ে চন্দ্রযান-২ (বিক্রম) মহাকাশে পাঠিয়েছিল ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইন্ডিয়ান স্পেস রিসার্চ অরগানাইজেশন (ইসরো)। কিন্তু শেষ মুহূর্তে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া সবাইকে হতাশায় পুড়তে হয়। ঐতিহাসিক এই মুহূর্তের সাক্ষী হতে ইসরোর সদর দপ্তরে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। গড়বড় হয়ে যাওয়ায় তাকেও ব্যর্থ মনোরথে ফিরতে হয়েছিল। তবে, এবার আশার কথা শোনালেন ইসরোর প্রধান। জানালেন, চন্দ্রযান-২ এর ল্যান্ডারের খোঁজ মিলেছে চাঁদের পৃষ্ঠেই।

রোববার, ইসরো প্রধান কে শিভান স্থানীয় গণমাধ্যমের কাছে চন্দ্রযানের ল্যান্ডার খুঁজে পাওয়ার কথা জানান।
সংবাদসংস্থা এএনআইকে তিনি জানিয়েছেন, আমরা চাঁদের পৃষ্ঠে বিক্রম ল্যান্ডারের অবস্থান খুঁজে পেয়েছি, ল্যান্ডারের একটি থার্মাল ইমেজ সংগ্রহ করেছে অরবিটার। তবে এখন পর্যন্ত ল্যান্ডারের সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি। আমরা যোগাযোগের চেষ্টা করছি। খুব দ্রুতই যোগাযোগ করা যাবে।

শনিবার ভোররাতে চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে অবতরণের কথা ছিল চন্দ্রযান-২ এর। চাঁদের পৃষ্ঠ থেকে মাত্র ২.১ কিলোমিটার দূরে থাকাবস্থায় এর সঙ্গে যোগযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছিল। ১,০০০ কোটি টাকারও কম খরচে এই চন্দ্রযান-২ এর মিশন সম্পন্ন করে ইতিহাস রচনার দিকে তাকিয়ে ছিল ভারত। এ মিশন সফল হলে আমেরিকা, রাশিয়া, চিনের পরেই স্থান হতো ভারতের। পাশাপাশি প্রথমবারেই চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে সফলভাবে অবতরণের রেকর্ডও দখলে আসতো তাদের দখলে।

জিএসএলভি মার্ক-৩ রকেটে চেপে ২২ জুলাই অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীহরিকোটা থেকে যাত্রা শুরু করে চন্দ্রযান-২। প্রথমে ১৫ জুলাই সেটি উৎক্ষেপণের কথা ছিল, তবে প্রযুক্তিগত ত্রুটির কারণে সেটি পিছিয়ে ২২ জুলাই চাঁদের উদ্দেশে পৃথিবী ছেড়ে যায় চন্দ্রযান-২।









Leave a reply