এবার সিনেমা হলের অনুমোদন দিলো সৌদি আরব

|

সংস্কারের পথে নতুন মাইলফলকে সৌদি আরব। এখন থেকে দেশটিতে প্রকাশ্যে চলচ্চিত্র প্রদর্শনী করা যাবে। সোমবার এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ। এ খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

দেশটির তথ্য ও সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রী আওয়াদ বিন সালেহ আলাওয়াদ এর ঘোষণা দিয়ে বলেন, সৌদি অর্থনীতির উন্নয়নে এটি একটি যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত। মন্ত্রী জানান, নিয়ন্ত্রক সংস্থা হিসেবে অডিওভিজুয়াল বিষয়ক সাধারণ কমিশন  সিনেমার প্রদর্শনীর জন্য এরিমধ্যে লাইসেন্স দেয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছে।

আশির দশকের গোড়ার দিকে সৌদি আরবে চলচ্চিত্র প্রদর্শনী নিষিদ্ধ করা হয়। সৌদি সমাজে উগ্রপন্থা যাতে মাথাচাড়া না দিতে পারে তা নিশ্চিত করতে সেসময় এমন কড়া সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। বর্তমান সৌদি যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমান দেশটিতে অর্থনৈতিক সংস্কারের নানা প্রকল্প হাতে নিয়েছেন। বলা হচ্ছে সৌদি আরবের নিজস্ব সংস্কৃতিকে আরো সমৃদ্ধ করতেই এমন উদার নীতি গ্রহণ করা হয়েছে। এর আগে এক রাজকীয় আদেশবলে সৌদি নারীদে গাড়ি চালানোর অনুমোদন দেয়া হয়, যা কার্যকর হবে ২০১৮ সালের জুন মাস থেকে।

সৌদি সরকারের ধারণা, ২০১৮ সালে মার্চ মাস নাগাদ সৌদি আরবে বাণিজ্যিকভাবে চলচ্চিত্রের প্রদর্শনী শুরু হবে। ২০৩০ সাল নাগাদ দেশটিতে সিনেমা হলের সংখ্যা ২ হাজার ছাড়িয়ে যাবে। যা দেশের অর্থনীতিতে ২৪ বিলিয়ন ডলার যোগ করবে। আর এই খাতে ৩০ হাজার নতুন কর্মসংস্থান হবে।









Leave a reply