কাশ্মীরে ঢোকা যাবে না, রওনার আগেই রাহুলদের জানিয়ে দিল মোদি সরকার

|

রওনা দিলেও লাভ হবে না। বিমানবন্দর থেকেই ফিরে আসতে হবে। কাশ্মীরের পথে যাওয়ার আগে রাহুলদের এই বার্তাই দিল ভারত সরকার।

শনিবার কংগ্রেস নেতা রাহল গান্ধিসহ ৯ বিরোধী দলের প্রতিনিধিরা পৌঁছবেন কাশ্মীরে। গুলাম নবি আজাদ, সীতারাম ইয়েচুরিদের বক্তব্যই বলে দিচ্ছে কাশ্মীর নিয়ে হাল ছাড়বেন না তাঁরা।

যদিও রওনা হওয়ার আগেই বাদ সেধেছে জম্মু-কাশ্মীরের তথ্য ও জনসংযোগ দফতরের একটি টুইট। যেখানে বলা হয়েছে, ‘সরকার এখন সীমান্তবর্তী সন্ত্রাস থেকে জম্মু কাশ্মীরের মানুষকে নিরাপত্তা দেওয়ার চেষ্টা করছে। এরকম একটা সময়ে রাজনৈতিক নেতারা জম্মু কাশ্মীরে এলে সাধারণ নাগরিকদের সমস্যায় পড়তে হবে। সেকারণে এখন তাঁদের উপত্যকায় আসা উচিত নয়।’

যদিও জম্মু-কালামনিব আশ্মীরের তথ্য ও জনসংযোগ বিভাগের এই মন্তব্য খুব একটা আমল দিচ্ছেন না বিরোধীরা। ইতিমধ্য়েই কাশ্মীরের উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজাদ। তাঁর সঙ্গে থাকার কথা রয়েছে আনন্দ শর্মা ও রাহুল গান্ধির।

কশ্মীরের পথে যাওয়ার সময় সংবাদ সংস্থাকে আজাদ বলেন,’আমরা বিরোধী দলের নেতারা নিজেদের দায়িত্ব সম্পর্কে ওয়াকিবহাল। আমরা ওখানে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নষ্ট করার জন্য় যাচ্ছি না। ২০ দিন হয়ে গেছে। জম্মু-কাশ্মীর সম্পর্কে কোনও খবর পাওয়া যাচ্ছে নাা। সরকার বলছে সব পরিস্থিতি স্বাভাবিক। তাহলে কাশ্মীরে যেতে কেন বাধা দেওয়া হচ্ছে। সরকারের বক্তব্য়ের মধ্যেই দ্বিচারিতা রয়েছে।’

তবেশুধু কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজাদ নন, একই বক্তব্য সিপিএম, সিপিআই ছাড়াও আরজেডি ও ডিএমকের।









Leave a reply